বৃহস্পতিবার, ১৩ Jun ২০২৪, ০৩:১০ পূর্বাহ্ন

ক্রিস্টাল ইন্সুরেন্সের ২৪ তম এজিএমে সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের পুঞ্জিভূতো অনেক জিজ্ঞাসা

ক্রিস্টাল ইন্সুরেন্সের ২৪ তম এজিএমে সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের পুঞ্জিভূতো অনেক জিজ্ঞাসা

সন্মানিত,
চেয়ারম্যান
ব্যবস্থাপনা পরিচালক
কোম্পানি সচিব।
ক্রিষ্টাল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড

দৃষ্টি আকর্ষণ :-
ড: এম উয়ালিউজ্জামান
স্বাধীন বা স্বতন্ত্র পরিচারক ও চেয়ারম্যান
অডিট কমিটি।

আইনগত ভিত্তি  :-ক্রিষ্টাল জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২৪ তম এজিএম এ  BSEC এর  সার্কুলার ‘২০১৮ এর  সেকশন ৫(৩) প্রতিপালনে স্বাধীন বা স্বতন্ত্র পরিচালক এর ভূমিকা ও জবাবদিহিতা।

নোটিশ  :- ক্রিষ্টাল জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি  লিমিটেডের ২৪ তম এজিএম এ কোম্পানি আইন ১৯৯৪ এর ৮৩(৮) ধারা অনুযায়ী পূর্বাহ্নে  নোটিশ এর মাধ্যমে  সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডার হিসেবে আমার প্রশ্নসমূহ   নিন্মরূপ।

প্রিয় মহোদয়,

১)বিগত ৪ বছরের গ্রস প্রিমিয়াম পর্যালোচনা করে দেখা যায়,
সাল—  গ্রস প্রিমিয়াম (কোটি টাকা)
২০১৯—–৫২.৭৩
২০২০—–৫৯.৮৪ প্রবৃদ্ধি ১৩.৪৮%
২০২১—–৬১.৭৪ প্রবৃদ্ধি    ৩.১৭%
২০২২—–৬৮.৪৮ প্রবৃদ্ধি    ১.৯২%
২০২৩—–৭১.০৭ প্রবৃদ্ধি    ৩.৭৮%
২০২২ ও ২০২৩ সালে প্রিমিয়াম এর প্রবৃদ্ধি অনেক কম।
এই দুই বছর নন লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানির জাতীয় প্রবৃদ্ধির হার কত ছিল।
তুলনামুলকভাবে ক্রিষ্টাল ইন্সুরেন্স এর প্রবৃদ্ধির হার এতো কম হওয়ার কারন ব্যাখ্যা করবেন।

২) রি ইন্সুরেন্স পর্যালোচনা করলে দেখা যায়,
২০১৬ থেকে ২০১৯ পর্যযন্ত এটা খুবই উদ্বেগজনক, ও বৃহৎ ঝুঁকিপূর্ণ।
সাল —রি ইন্সুরেন্স এর হার ( গ্রস প্রিমিয়াম এর বিপরীতে)
২০১৬—–২৫.০৫%
২০১৭—–২৭.১৮%
২০১৮ —–২৯.৮৪%
২০১৯ —–২৫.৯০%

২০২০ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত কিছুটা বাড়লেও এখনও অপ্রতুল ও ঝুঁকিপূর্ণ।

সাল —রি ইন্সুরেন্স এর হার ( গ্রস প্রিমিয়াম এর বিপরীতে)
২০২০—–৩৫.১৪%
২০২১—–৩৬.৭৫%
২০২২ —–৩০.০২%
২০২৩—– ৩৩.০০%
যা  ক্লেইম এর ঝুঁকি বাড়িয়েছে বা  পর্যাপ্ত রি ইন্সুরেন্স এর কভারেজ রাখা হয়নি।
সমগ্র নন লাইফ ইন্সুরেন্স খাতে অধিকাংশ কোম্পানির  যেখানে রি ইন্স্যুরেন্স এর হার ৪০% থেকে ৫৫% পর্যন্ত ,
সেখানে ক্রিষ্টাল  ইন্সুরেন্স এ এতো কম কেন .
যে কোন একটি বড় ক্লেইম কিন্তু কোম্পানির আর্থিক ভিত্তি নড়িয়ে বা নড়বড়ে করে দিতে পারে ,
এর স্বচ্ছ ও সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা  সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের জানা প্রয়োজন।।

৩) ক) ২০১৬ সাল থেকে ২০১৯’পর্যন্ত  ক্লেইম এর অবস্থা উদ্বেগজনক। এই ৪ বছরে ক্লেইম পরিশোধ করা হয়েছে ৩৮.৯০ কোটি টাকা, যা ৪ বছরের গ্রস প্রিমিয়াম ১১৬ কোটি টাকার ৩৩.৫৩%।
একইভাবে
২০২০ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ক্লেইম পেইড ৩৩.৬৪ কোটি টাকা।
সাল — ক্লেইম পেইড ( কোটি টাকা)
২০২০—– ৩.৩৪
২০২১—– ৫.৯০
২০২২ —–৬.০১
২০২৩—–১৮.৪০
৮ বছরে নিট ক্লেইম ৭৯ কোটি টাকা উল্লেখ করা থাকলেও প্রকৃতপক্ষে মোট  ক্লেইম কতো .
যা সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডারদের জানা প্রয়োজন ,

খ) এই গ্রস ক্লেইম এর  কত পারসেন্ট বা কতো টাকা রি ইন্সুরেন্স কভারেজ আছে ।
সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের তা ব্যাখ্যা

৪) ২০২৩ সালের  খাত ওয়ারী ইন্সুরেন্স পর্যালোচনা করলে দেখা যায় :-
ক) মোট ৭১.০৭ কোটি টাকার মধ্যে
ফায়ার ইন্স্যুরেন্স —  ৩১.৬১ কোটি টাকা ,
যা মোট প্রিমিয়ামের ৪৪.৪৮%
মেরিন  ইন্স্যুরেন্স —  ২৭.৭১ কোটি টাকা ,
যা মোট প্রিমিয়ামের ৩৯%

মটর ইন্স্যুরেন্স —  ২.৮২ কোটি টাকা ,
যা মোট প্রিমিয়ামের ৪.০২%

মিস  ইন্স্যুরেন্স —  ৮.৯৩ কোটি টাকা ,
যা মোট প্রিমিয়ামের ১২.৫৬%

খ)  রি ইন্সুরেন্স পর্যালোচনা করলে দেখা যায়
বিবিধ ইন্সুরেন্স – গ্রস প্রিমিয়ামের ৫৬.৪৪%
ফায়ার ইন্সুরেন্স – গ্রস্ প্রিমিয়ামের ৩২.৮৫%
মেরিন ইন্সুরেন্স – গ্রস প্রিমিয়ামের ২৫.০৮%

অথচ সহযাত্রী  প্রাইম ইন্সুরেন্স লিমিটেডের রি ইন্সুরেন্স পর্যালোচনা করে দেখা যায় :-
প্রাইম ইন্সুরেন্স এর বিগত বছরে   রি ইন্সুরেন্স এর হার

বিবিধ ইন্সুরেন্স – গ্রস প্রিমিয়ামের ৯৪.৬০%
ফায়ার ইন্সুরেন্স – গ্রস্ প্রিমিয়ামের ৮৯.১০%
মেরিন ইন্সুরেন্স – গ্রস প্রিমিয়ামের ৫১.১০%
এক আকাশ পাতাল ব্যাবধান , কেন? ??????
বিষয়টি অতীব গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় নিয়ে সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডারদের আস্বস্থ করবেন ,

গ) ক্লেইম পর্যালোচনা করে দেখা যায় ( কোটি টাকা)
সাল– —–ক্লেইম —ক্লেইম পেইড — রি ইন্সুরেন্স কাভারেজ

২০১৯–১৬.৯৭——-১২.৯৮ ——-৩.৯৯ বা ২৩.৫১%
২০২০—৫.৯৬ ——    ৩.৩৩——–২.৬৩ বা ৪৪.১৩%
২০২১—৬.১১ ——    ৫.৯০   —— ০.২১ বা ৩.৪৪%
২০২২–১০.৬০ ——- ৬.০১ ——–৪.৫৯ বা ৪৩.৩০%
২০২৩–২১.৪০——  ১৮.৪০   —+–৩.০০ বা ১৪.০০
বিগত ৫ বছরে
ক্লেইম ———–৬১.০৪ কোটি টাকা
ক্লেইম পেইড —- ৪৬.৬২ কোটি টাকা
রি ইন্সুরেন্স কাভারেজ —১৪.৪২ কোটি টাকা
যা মোট ক্লেইম এর মাত্র ২৩.৬৩%
এর দায়দায়িত্ব কার।
এর সন্তোষজনক ব্যাখ্যা প্রয়োজন।

ধন্যবাদান্তে

শাহ আলম বাবু
বিও  আইডি নং – ১২০২১৪০০০০০১৪০০৬
মোবাইল  ০১৯৬৬৬৩৭৭৭১

সন্মানিত,
চেয়ারম্যান
ব্যবস্থাপনা পরিচালক
কোম্পানি সচিব।
ক্রিষ্টাল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড

দৃষ্টি আকর্ষণ :-
ড: এম উয়ালিউজ্জামান
স্বাধীন বা স্বতন্ত্র পরিচারক ও চেয়ারম্যান
অডিট কমিটি।

আইনগত ভিত্তি  :-ক্রিষ্টাল জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২৪ তম এজিএম এ  BSEC এর  সার্কুলার ‘২০১৮ এর  সেকশন ৫(৩) প্রতিপালনে স্বাধীন বা স্বতন্ত্র পরিচালক এর ভূমিকা ও জবাবদিহিতা।

নোটিশ  :- ক্রিষ্টাল জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি  লিমিটেডের ২৪ তম এজিএম এ কোম্পানি আইন ১৯৯৪ এর ৮৩(৮) ধারা অনুযায়ী পূর্বাহ্নে  নোটিশ এর মাধ্যমে  সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডার হিসেবে আমার প্রশ্নসমূহ   নিন্মরূপ।

প্রিয় মহোদয়,

১)ক) Annexure -A
কোম্পানির ফিক্সড এসেট কস্ট ৫৩.০১ কোটি টাকা। ডেপ্রিসিয়েশনের পর ২৫.৭৫ কোটি টাকা।
এর মধ্যে কস্ট প্রাইস এ
ল্যান্ড ————–৫.১৮ কোটি টাকা
মোটর ভেহিকেল — ১৩.০৫ কোটি টাকা
অফিস স্পেস  ——২৫.৫৪ কোটি টাকা
উল্লেখযোগ্য।।
মোটর ভেহিক্যাল ক্রয়
২০২০ সালে  ৩.১২ কোটি টাকা
২০২১ সালে  ৩.৩৫ কোটি টাকা
২০২২ সালে ১.৯৯ কোটি টাকা
সহ মোট ১৩.০৫ কোটি টাকার যে মোটর গাড়ি কেনা হয়েছে, ইন্সুরেন্স সেক্টর এ তা অস্বাভাবিক বেশী।
মোটর গাড়ীর  সংখ্যা ও কে কে ব্যাবহার করছেন তাদের তালিকা সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের জানাবেন।।

খ) ফিক্সড এসেটে দেখা যায় ২০২০ সালে
৩.১২ কোটি টাকার মটর ভেহিক্যাল কেনা হয়েছে , যা অস্বাভাবিক
০.৩৫ কোটি টাকার মটর ভেহিক্যাল এডজাস্ট করা হয়েছে .০.৫৪ কোটি টাকার মটর গাড়ি বিক্রয় করা হয়েছে .যার জন্যে এজিএম এ অনুমোদন প্রয়োজন , অথচ প
যার কোন বিবরণী , নোট , ফুটনোট নাই , অথচ আইনগতভাবে এর বিস্তারিত উল্লেখ করা অপরিহার্য , যেমন

এ মোট কত  টি মোটর কার বিক্রয় করা হয়েছে
উক্ত  মোটর কার এর ক্রয়মূল্য. কতো  কোটি টাকা
উক্ত  মোটর কার এর বিক্রয়মূল্য মাত্র কতো  কোটি টাকা
উক্ত  মোটরগাড়ি বিক্রয়ে নিট লাভ কতো টাকা   !
কি প্রক্রিয়ায় ও কতটুকু স্বচ্ছতা র সাথে বিক্রয় করা হয়েছে
যা প্রশ্নবিদ্ধ ও অগ্রহনযোগ্য. !
এই সংক্রান্ত সকল নথিপত্র পর্যালোচনা ও পুন পরীক্ষা নিরীক্ষা করা প্রয়োজন. !

২)ক) কোম্পানির আউট স্ট্যান্ডিং ক্লেইম ২০২৩ সালে ১১.৭৮ কোটি টাকা হলেও  এর পরিমাণ এখনও অনেক বেশী

খ)  আন্ডার রাইটিং প্রফিট গতবছর ছিলো ১৩.৭৪ কোটি টাকা , এবছর হয়েছে ১৪.২১ কোটি টাকা  !
ক্লেইম পেইড ১২.৩৯ কোটি বা ২০৬% বৃদ্ধি পাওয়ার পরও আন্ডাররাইটিং প্রফিট এত বাড়লো কিভাবে।

গ)  প্রফিট বিফোর ট্যাক্স  গতবছর ছিলো ১৩.০২ কোটি টাকা , এবছর হয়েছে ১৪.৬০ কোটি টাকা  !
এখানেও একই প্রশ্ন।

ঘ)  প্রফিট আফটার ট্যাক্স গতবছর ছিলো ১০.৮৯ কোটি টাকা , এবছর হয়েছে ১২.১৮ কোটি টাকা  !

ইপিএস ২.৭২ টাকা থেকে হয়েছে ৩.০৫ টাকা ,
ডিভিডেন্ড ১০% থেকে ১৭%, যার মধ্যে ১০% স্টক।
এটা ইতিবাচক . এজন্য ধন্যবাদ

৩) প্রিমিয়াম ডিপোজিট  ২০২৩ সালে কিছুটা কমে ১১.৭৮ কোটি টাকা হলেও তুলনামুলকভাবে বেশী।
এর মধ্যে মেরিন কার্গো ১১.৭৮ কোটি টাকা। যা এবছরের ব্যবসা ২৬.২৯ কোটি টাকার ৪৫%।
এই অস্বাভাবিক প্রবনতার সন্তোষজনক ব্যাখ্যা প্রয়োজন ,

৪) নোোট ২৯ ও ৩০
(ক) ২০২৩ সালে ম্যানেজমেন্ট এক্সপেন্স ১৯.৮০ কোটি টাকা   যা গ্রস প্রিমিয়াম এর ২৭.৮৬ %।

এখানে এলাউয়েবল ম্যানেজমেন্ট এক্সপেন্স কত। , ঘাটতি / উদ্বৃত্ত কতো ,
তা সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডারদের জানাবেন

(খ) একইভাবে
২০২৩ সালে এজেন্সি কমিশন ছিলো ৬.২৪ কোটি টাকা , যা নিট প্রিমিয়ামের  ১৩.১০%।
এটা কি সরকার নির্ধারিত সীমার মধ্যে।
সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের জানাবেন।

ধন্যবাদান্তে

মো: আফছার উদ্দিন সরকার ।
বিও   ১২০২৬৪০০০০০৫০৩৩৯
মোবাইল  ০১৭৫১৬৩২৬২৮

সন্মানিত,
চেয়ারম্যান
ব্যবস্থাপনা পরিচালক
কোম্পানি সচিব।
ক্রিষ্টাল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড

দৃষ্টি আকর্ষণ :-
ড: এম উয়ালিউজ্জামান
স্বাধীন বা স্বতন্ত্র পরিচারক ও চেয়ারম্যান
অডিট কমিটি।

আইনগত ভিত্তি  :-ক্রিষ্টাল জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২৪ তম এজিএম এ  BSEC এর  সার্কুলার ‘২০১৮ এর  সেকশন ৫(৩) প্রতিপালনে স্বাধীন বা স্বতন্ত্র পরিচালক এর ভূমিকা ও জবাবদিহিতা।

নোটিশ  :- ক্রিষ্টাল জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি  লিমিটেডের ২৪ তম এজিএম এ কোম্পানি আইন ১৯৯৪ এর ৮৩(৮) ধারা অনুযায়ী পূর্বাহ্নে  নোটিশ এর মাধ্যমে  সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডার হিসেবে আমার প্রশ্নসমূহ   নিন্মরূপ।

প্রিয় মহোদয়,

১) ক)  নোট ২৪
FDR ২০২৩ সালে ১০০.৫৮ কোটি টাকা ,
যা কোম্পানির অন্তর্নিহিত শক্তি ও আর্থিক ভিত্তি কে মজবুত করেছে ,এজন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা ,
তবে ইচ্ছাকৃত ভাবে এর কোন শিডিউল বা তালিকা দেওয়া হয়নি
কারন ২০২০ সালের বার্ষিক রিপোর্ট এ এই তালিকা ছিল। সেখানে
কিছু কিছু প্রতিষ্ঠানে FDR রাখা হয়েছে তা ঝুকিপূর্ন ও আদায় করা অসম্ভব হতে পারে , যেমন

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং — ২.৪৫ কোটি টাকা ,
প্রাইম ফাইন্যান্স –১.০০ কোটি টাকা
ইউনিয়ন ক্যাপিটাল  — ০.৯৫ কোটি টাকা ,

ইসলামিক  ফাইন্যান্স –২.০০ কোটি টাকা
আই আই ডিএফসি  — ৩.০০ কোটি টাকা ,

বাংলদেশ কমার্স ব্যাংক  –১.৪৫ কোটি টাকা
এই ১০.৮৫ কোটি টাকা কার নির্দেশ বা নির্দেশনায় রাখা হয়েছে সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডারদের জানাবেন ,
এই অর্থ আদায় না হলে এর দায় দায়িত্ব কে বহন করবে ,
জানাবেন ,

খ) নোট ১৬.০২
কোম্পানি শেয়ারে বিনিয়োগ করেছে ১৯.৯০ কোটি টাকা ,
অথচ আইন অনুযায়ী শেয়ারের কোনো তালিকা তা বিবরণী নাই ,
কোন নোট বা ফুট নোট নাই
কোন কোন কোম্পানির কতগুলো শেয়ার কেনা হয়েছে
তার ক্রয়মূল্য কতো , বাজার মুল্য কতো
কোন তথ্য নেই .
এই তথ্য সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডারদের জানা প্রয়োজন।

২)নোট ১০
SBC এর পাওনা ২১.৪০ কোটি টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ২৭.৫৬ কোটি টাকা ,
এর মধ্যে পেইবল ৮.৯১ কোটি  থেকে হয়েছে ৯.৯৬ কোটি টাকা

এর মধ্যে পেইড (৬.৯৬) কোটি  থেকে হয়েছে (৩.৭৯) কোটি টাকা
এর বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেবেন ,

৩)ক) নোট ২০
SBC এর কাছে  পাওনা ১২.৬৪ কোটি টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ১৩.৮২ কোটি টাকা ,
এর বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেবেন ,
খ)  SBC এর পাওনা —–২৭.৫৬ কোটি টাকা
SBC এর নিকট পাওনা — ১৩.৮২ কোটি টাকা
ব্যবধান —-১৩.৭৪ কোটি টাকা।
এই ব্যবধানের শিডিউল ও বিস্তারিতভাবে তথ্য ও ব্যাখ্যা দেবেন।

৪) পৃষ্ঠা -১৯২ নোট -২২
Advance against Motor vehicle — ০.৬৪ কোটি টাকা।
১৩.০৫ কোটি টাকার মোটর ভেহিক্যাল থাকার পরও এই অগ্রিম কার জন্যে এবং কি কারণে।
অনুগ্রহপূর্বক জানাবেন।

৫) অনেক  বার্ষিক সাধারণ সভায় সংখ্যালঘু শেয়ারহোল্ডারদের  লিখিত প্রশ্ন আমলে নেওয়া হয় না , ডিজিটাল প্লাটফর্মের মন্তব্য স্থলে পোস্ট করলেও  উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রদর্শিত হয় না!
প্রশ্নের কোন উত্তর দেয়া হয় না .
উত্তর দিলেও  প্রাসঙ্গিক গুরুত্বপূর্ণ  প্রশ্নগুলো এড়িয়ে যাওয়া হয়. ! বেছে বেছে গুরুত্বহীন প্রশ্নের  উত্তর দেওয়া হয়. !
আশা করি এই কোম্পানির  ক্ষেত্রে তা হবে না!

২০২৩ বছরের  বার্ষিক রিপোর্ট ও হিসাব সমুহের উপর উপরোক্ত  প্রশ্ন সমূহের সন্তোষজনক জবাব সহ তা এজিএম এর কার্যবিবরণী তে অন্তর্ভুক্তিকরণ জন্যে অনুরোধ করছি  !

ধন্যবাদান্তে

মেহেদী হাসান
বিও ১৬০৫১২০০৭৪৪৩৬৫৮৯
মোবাইল  ০১৭২৮৮৮৮৮৮৮

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2023 ajkerpujibazar.com
Design & Developed by BD IT HOST