বৃহস্পতিবার, ১৩ Jun ২০২৪, ০৫:০৬ পূর্বাহ্ন

ময়মনসিং ৮আসনের মানুষের সুখে দুখের সাথী লুৎফুল গণি টিটু

নিজস্ব প্রতিবেদন: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আর মাত্র কয়েক মাস পরই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহুল আলোচিত ওই নির্বাচন। এবারের নির্বাচনকে তরুনদের নির্বাচন বলে মনে করছেন ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ লায়ন লুৎফুল গনি টিটু। তিনি বিশিষ্ট শিল্পপতি, অনুরাগী সমাজসেবক ও ইউনিমার্ক গ্রুপ এর চেয়ারম্যান। দীর্ঘ ২৩ বছর ব্যবসা করে নিজেকে তিলে তিলে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। পাশাপাশি চর্চা করেছেন সুষ্ঠু রাজনীতির। নিয়মিত গণসংযোগ করেছেন নিজের নির্বাচনী এলাকা ময়মনসিংহ-৮ আসনে। ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নিয়ে ওই আসন গঠিত। জাতীয় সংসদের ১৫৩ নং আসনটিকে কিছুটা অবহেলিত বলে মনে করেন লুৎফুল গনি টিটু। তিনি জানান, দীর্ঘ ১৫ বছর আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলেও যোগ্য নেতৃত্বের অভাবে এ এলাকায় তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি। কারন এখানকার সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির মনোনীত ব্যক্তি। এলাকার মানুষ এবার দাবি করে বলেছে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য। তাদের দাবিকে আমি উপেক্ষা করতে পারিনি। ব্যবসার কাজে দেশে বা বিদেশে যেখানেই থেকেছি না কেন এলাকার মানুষের সঙ্গে আমার সম্পর্ক সবসময় অটুট ছিলো,আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। এই ব্যবসায়ি বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। তবে আমি এলাকার উন্নয়ন করতে চাই, আমার ঈশ্বরগঞ্জের মানুষের উন্নয়ন চাই। এখানকার প্রতিটি তরুনের মুখে সফলতার হাসি দেখতে চাই। তিনি বলেন, আমাদের প্রিয় প্রধানমন্ত্রী সবসময় দেশ গঠনে তরুনদের গুরুত্ব দিয়ে এসেছেন। কারন বাংলাদেশকে ভবিষ্যত উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাবে এই তরুনরাই। তাই আমার নির্বাচনী এলাকার তরুনদের জন্য বিশেষ পরিকল্পনা করেছি। দলের সমর্থন পেলে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে জিততে পারলে আমি আমার সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবো। যুক্তি দেখিয়ে তিনি বলেন, আমি লক্ষ্য করেছি অনেক তরুন তাদের আয়ের জন্য এলাকার কাবিখা, টিআরসহ বিভিন্ন প্রজেক্টের দিকে চেয়ে থাকে। দলীয় নেতাদের আনুকুল্য নিয়ে আর্থিক উন্নয়ন করতে চায়। আমি তরুনদের এই ছোট স্বপ্ন থেকে বের করে আনতে চাই। তাদেরকে আরও বড় স্বপ্ন দেখিয়ে সফলতার পথ বাতলে দিতে চাই। তিনি বলেন, ঈশ্বরগঞ্জের তরুনরা অনেক মেধাবী। দেশে বিদেশে অনেকেই সুনাম কুড়িয়েছেন। এখানে যারা বয়স্ক ব্যক্তি রয়েছেন তাদের অভিজ্ঞতা নিয়ে তরুনদের সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ।  ১১টি ইউনিয়ন নিয়ে ঈশ্বরগঞ্জ আসনটি গঠিত। এর মধ্যে রয়েছে-ঈশ্বরগঞ্জ, সোহাগী, সরিষা, আঠারবাড়ী, জাটিয়া, মাইজবাগ, মগটুলা, রাজিবপুর, উচাখিলা, তারুন্দিয়া এবং বড়হিত। মাইজবাগ ইউনিয়নের বাসিন্দা আবদুল হালিম জানান, লুৎফুল গণি টিটু আমাদের ছাওয়াল। সবসময় তাকে পাশে পেয়েছি। আমাদের নিয়মিত খোঁজ-খবর রাখেন তিনি। অনেক বড় ব্যবসায়ি হলেও আমাদের কাছে সে একজন কাছের মানুষ। বিপদের বন্ধু। প্রায় একই মন্তব্য করেন রাজিবপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা রাবেয়া খাতুন। তিনি বলেন, আমাদের সুখে-দু:খে টিটুকে পেয়ে এসেছি সবসময়। এলাকায় এসে আমাদের সঙ্গে দেখা করেন, কথা বলেন। সুখ-দু:খের খোঁজ খবর নেন। এজন্য আমরা সবাই দাবি করছি আগামী নির্বাচনে তিনি যেনো এমপি পদে দাঁড়ান। একই এলাকার মুদি দোকানদার হারুন মোল্লা বলেন, এখনকার রাজনীতিবিদরা এমপি হয়ে নিজেদের উন্নয়ন করেন। এলাকায় তাদের তেমন খুঁজে পাওয়া যায় না। এদিক থেকে আমাদের লুৎফুল গনি টিটু ব্যতিক্রম হবে বলে মনে করি। কারন সে এরইমধ্যে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ি। তাই তার নিজের উন্নয়নের তুলনায় ঈশ্বরগঞ্জের উন্নয়নের দিকে বেশি মনোযোগী হবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি। এদিকে গত কয়েক বছর ধরে এলাকায় নিয়মিত গণসংযোগ করছেন লুৎফুল গনি টিটু। আওয়ামী লীগের সব ধরনের কর্মসূচিতে তাকে দেখা গেছে সরব ভূমিকায়।

© All rights reserved © 2023 ajkerpujibazar.com
Design & Developed by BD IT HOST